ডিসি মোটর সম্পর্কে বিস্তারিত

0
162

হ্যালো পাঠকবর্গ আজকে ডিসি মোটর সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো।

যে ইলেকট্রিক্যাল মেশিন ডিসি শক্তি গ্রহণ করে উহাকে যান্ত্রিক শক্তিতে রূপান্তর করে উহাকে ডিসি মোটর বলে। ডিসি মোটর ও ডিসি জেনারেটর এর গঠন একই রকম। যদি ডিসি মেশিনের আর্মেচারকে প্রাইম মুভারের সাহায্যে ঘুরানো হয় তবে মেশিনটি জেনারেটর হিসেবে কাজ করবে এবং যদি আর্মেচার পরিবাহীতে  ডিসি সরবরাহ দেয়া হয় তবে মেশিনটি মোটর হিসেবে কাজ করবে। ডিসি মোটরের অপর নাম ফ্রি-ওয়ে মিটার। 

ডিসি মোটরের মূলনীতি ও কার্যপ্রণালীঃ

মূলনীতিঃ যদি চুম্বক ক্ষেত্রের মধ্যে কোন পরিবাহী কারেন্ট বহন করে। তবে ঐ পরিবাহীতে একটি লব্ধি বল তৈরি হয় যার মান ও দিক ফ্লেমিং এর বাম হস্ত নিয়ম থেকে পাওয়া যায়। এই বলের প্রভাবে মোটর ঘুরতে শুরু করে।

কার্যপ্রণালীঃ 

মনেকরি, N পোলের অধীনে পরিবাহী গুলোতে কারেন্ট ভিতরে যাচ্ছে এবং S পোলের অধীনে পরিবাহী গুলোতে কারেন্ট বাহিরে আসছে। ফলে প্রতিটি পরিবাহীতে একটি লব্ধি বল উৎপন্ন হয়। ফ্লেমিং এর বাম হস্ত নিয়ম প্রয়োগ করে এই বলের দিক পাওয়া যায়। যেহেতু আর্মেচারে উপর পরিবাহী গুলো বসানো থাকে। ফলে পরিবাহীর উপর উৎপন্ন বলের প্রভাবে আর্মেচার সহ পরিবাহী গুলো ঘুরতে শুরু করে।

ডিসি মোটরের ব্যাক EMF: ডিসি মোটরে সাপ্লাই দেয়া হলে ফ্লাক্স এর কারণে কন্ডাক্টরে কারেন্ট আগত হওয়া ও নির্গত হওয়ার উপর ভিত্তি করে আর্মেচার কন্ডাক্টর ঘুরতে শুরু করে। এরফলে ম্যাগনেটিক ফিল্ডের ফ্লাক্স কন্ডাকটর দ্বারা কর্তন হয়। এতে কন্ডাক্টরে EMF ইন্ডিউসড হয় যা মূল সাপ্লাই এর বিপরীত হয়। একেই ব্যাক EMF বা কাউন্টার EMF বলে।

ডিসি মোটরের জন্য স্টার্টারের প্রয়োজনীয়তাঃ প্রথম পর্যায়ে মোটর যখন স্টার্ট বা চালু করা হয় তখন মোটরে কোন ব্যাক EMF থাকে না। তাই সুইচ চালু করলে সম্পূর্ণ লাইন ভোল্টেজ আর্মেচারের মধ্য দিয়ে খুব বেশি কারেন্ট প্রবাহিত হয়। এই অতিরিক্ত কারেন্টের ফলে ব্রাশ, কম্যুটেটর এবং কয়েল পুড়ে যেতে পারে অথবা কম্যুটেটরে স্পার্কিং হতে পারে। এই সমস্যা দূর করে মোটরকে নিরাপদে চালু করার জন্য আর্মেচারের সাথে সিরিজে স্টার্টার ব্যবহার করার প্রয়োজন হয়। মোটর স্টার্ট হওয়ার সময় আর্মেচার কারেন্টকে স্টার্টার এর মাধ্যমে নিরাপদ মানে কমিয়ে আনা হয়। যখন মোটরটি সম্পূর্ণভাবে চালু হয়ে যায়। তখন স্টার্টারকে মোটর থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়।

ডিসি মোটরে কম্যুটেটরের কাজঃ আর্মেচারের প্রতি ঘূর্ণনে কারেন্টের দিক পরিবর্তন করে টর্ক এর দিক অপরিবর্তন রাখাই কম্যুটেটর এর কাজ। এক কথায় DC কে AC তে রূপান্তর করার জন্য ডিসি মোটরে কম্যুটেটর ব্যবহার করা হয়।

ধন্যবাদ সবাইকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here